এরপর আমি আশে পাশের তাকিয়ে দেখতে লাগলাম অনেক

এরপর আমি আশেপাশের তাকিয়ে দেখতে লাগলাম অনেক , রুমে এসেই কোন কিছু খেয়াল না

করে বিছানায় চোখ বুজে শুয়ে পরলাম। ব্যাস এক ঘুমেই সকাল হয়ে গেল সকালের খাবার খেয়ে একা

একা বাসা থেকে বের হলাম। এখন প্রায় সকাল ১০ টা বাজে। অনেক দিন হলো নিজের শহরে এসেছি।

কিন্তু কিছুই ঘুরে দেখা হয় নি। তাই একটু ঘুরতে বের হলাম।। আরেকটু সামনেই একটা কলেজ আছে।

এসএসসি পাশ করে এই কলেজে লেখাপড়া করার কথা ছিল আমার। কিন্তু আফসোস সেইটা আর হলো না।

আরও ভালবাসার গল্প পেতে ভিজিট করুউঃ todaylawfirm.com

এরপর আমি আশে পাশের তাকিয়ে দেখতে লাগলাম অনেক

খুব ইচ্ছে হলো ভিতরটা একটু ঘুরে দেখার। তাই কলেজের গেট দিয়ে ভিতরে ঢুকলাম। কলেজ বোধহয়

আজকে খোলা। ১০ টার বেশি বাজায় স্টুডেন্টরা সবাই হয়তো ক্লাস করতে চলে গেছে। আমি আশেপাশে

তাকাতে লাগলাম। অনেক সুন্দর পরিবেশ। তবে একটা বিষয় খেয়াল করলাম যে এখানে আশেপাশে অনেক

গুলো ছেলে মেয়ে আলাদা ভাবে বসা আছে। মানে যাদেরকে এক কথায় গার্লফ্রেন্ড বয়ফ্রেন্ড বলে।

আমিও কলেজের কোনে একটা বেঞ্চে গিয়ে বসলাম। এরপর আমি একজনকে ফোন দিলাম।

আমি একদম রেডি। খুলনা শহরের সবচেয়ে বড় বিল্ডিংয়ের উপরে আছি স্যার। ওকে স্যার,

মনে করুন আপনার কাজ হয়ে গেছে।। এরপর আমি ফোন রেখে দিলাম। এবং সাথে সাথেই আমার

সহকারী নাজমুলকে ফোন দিলাম।। অপরদিকে এনামুল সাহেবের ফোনে সকালে একটা কল আসে।

এনামুল সাহেব ফোনটা রিসিভ করে এবং প্রায়

১০ মিনিট কথা বলে। এরপর ফোন রেখে দিয়ে একটা শয়তানি হাসি দেয়। কারন সে মাত্রই একটা

বিজনেস ডিল সম্পন্ন করল। এখানে তার ৮০% লাভ হবে। কারন সে যে পন্য গুলো প্যাক করে পাঠাবে

তার সব গুলোই ভ্যাজাল + নকল। তার খুব ভালোই লাগে যখন এমন বলদ মার্কা ডিলার পায়।

তাই সে মনের আনন্দে বাসা থেকে গাড়ি নিয়ে বের হয় গোডাউনের উদ্দেশ্যে। এনামুল হক যেহেতু এই শহরের

একটা বড় পদে আছেন। তাই একটু হালকা পাতলা বডিগার্ড নিয়ে চলতেন। কিন্তু যেদিন সে ফোনে

একটা হুমকি পায়। এরপর থেকে অনেক বডিগার্ড নিয়ে চলাফেরা করে সে। ঠিক তেমনই আজকেও তার সামনে

খানে একটা খুব দামী গাড়ি সেই গাড়ির ভিতরেই

মি. এনামুল হক। অপরদিকে খুলনার সবচেয়ে বড় বিল্ডিংয়ের ছাদে সাইলেন্সার লাগানো বন্দুক নিয়ে বসে আসে একজন কন্ট্রাক্ট কিলার। যে কি না এনামুল হক এর জন্যই অপেক্ষা করতেছিল।

তার কন্ট্রাক্ট অনুযায়ী সে এনামুল হকের গাড়িতে থাকা ড্রাইভারের উপরে গুলি চালয়। বন্দুকের গুলিটা সোজা গিয়ে ড্রাইভারের মাথায় লেগে গুলি বেরিয়ে যায়। সাথে সাথেই গাড়িটা তার

গতি হারিয়ে রাস্তার পাশের একটা ল্যাম্পপোস্টের সাথে ধাক্কা খায়। গাড়ির স্পিড কম থাকায় এনামুল হকের তেমন

কোন ক্ষতি হয় নি। বডিগার্ড গুলো এসে তারাতাড়ি এনামুল হককে গাড়ি থেকে বের করে। এনামুল এগুলো দেখে মনে মনে বলেএই যাত্রায় বেচে গেলাম।

এরপর থেকে বুলেট প্রুফ গাড়ি নিয়ে চলাফেরা করব। ঠিক তখনই তার ফোনে একটা কল আসে। আননোন নাম্বার। তিনি সাথে সাথে ফোনটা রিসিভ করে৷

About admin

Check Also

বড় স্বপ্ন নিয়ে বিয়ে না করলেও একটু আশা নিয়ে বিয়েটা

বড় স্বপ্ন নিয়ে বিয়ে না করলেও একটু আশা নিয়ে বিয়েটা , না সহ্য করতে পেরে।কোন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *