আমাকে দেখে তিনি বসতে বললেন আর বললেন কী

আমাকে দেখে তিনি বসতে বললেন আর বললেন কী, সমস্যায় পরেছি আমি। আমি সম্পূর্ণ

ঘটনা খুলে বললাম। আর বললাম আমাকে এবং আমার বোন কে সহায্য করুন দয়া করে। তিনি সব

শুনে বললো চলো আমি তোমার সাথে তোমার বাড়ি যাবো। আমি নিজের চোখে তোমার বোন কে দেখতে চাই।

আরও ভালবাসার গল্প পেতে ভিজিট করুউঃ todaylawfirm.com

আমাকে দেখে তিনি বসতে বললেন আর বললেন কী

আমাদের বাড়ির সামনে এসে এক দৃষ্টিতে বাড়ির দিকে তাকিয়ে আছে। আমি জিজ্ঞেস করলাম কী দেখছেন?

উনি মাথা নেরে জবাব দিলো কিছু না আমি বললাম ভিতরে চলুন। আমি তাকে নিয়ে বাড়ির ভিতরে চলে এলাম।

আর এসেই তাকে খাবার টেবিলে বসলাম। আর কাজের মেয়েটিকে বললাম তাকে খাবার দেওয়ার জন্য।

লোকটি আমাকে বললো তোমার বোনকে ডাকো আমি ওকে দেখতে চায় একবার। আমি নিজে রাহির রুমে গেলাম।

আর ওকে ড্রয়িং রুমে ওকে নিয়ে আসলাম। রাহি ওই লোকটা কে দেখে কেমন জানি চমকে উঠলো।

লোকটি তার ব্যাগ থেকে একটা কি যেন গাছের ডাল বের করলো। আর ওটা দেখে রাহি ছটফট করতে লাগলো।

রাহি ওখান থেকে দৌড়ে গিয়ে টেবিলে থাকা ফল কাটা ছুরি নিজ হাতে তুলে নিলো। আর বলতে

লাগলো ভাইয়া এই লোকটা কে এখান থেকে চলে

যেতে বলো। নয়তো নিজেকে আমি শেষ করে দেবো। আমি লোকটা কে বললাম প্লিজ আপনি এখান

থেকে চলে যান। নয়তো ও কিছু একটা করে ফেলবে। লোকটা বললো তুমি শান্ত হউ আমি এখান থেকে

চলে যাচ্ছি। লোকটা ঘর থেকে বেরিয়ে যেতে লাগলো। আমি রাহির হাত থেকে ছুরিটা কেড়ে নিলাম।

আর কাজের মেয়েটিকে বললাম ওকে ওর রুমে নিয়ে যাও। আমি বাইরে চলে এলাম। বাইরে আসতেই

লোকটি আমাকে বললো তোমার বোনের অবস্থা বেশি ভালো নেই। ও নাগিন নাকি ওর উপর কোন নাগিন

এর চোখ পরেছে তা এখন বুঝা সম্ভব নয়। উনি উনার ব্যাগে থাকা একটা গোল চাকতির মতো কিছু একটা

আমাকে দেখে তিনি বসতে বললেন আর বললেন কী

দিয়ে বললো যদি সত্যি কোন নাগিন তোমার বোনের উপর ভর করে থাকে বা সে নাগিন হয়ে থাকে তাহলে তাকে শক্তি নেওয়ার জন্য এই রকম বস্তু ব্যাবহার করতে হবে। তুমি শুধু আজ রাতে নজর রেখো।

লোকটি চলে গেলো। সেদিন রাতের ঘটনা। মধ্যরাতে ওই লোকের কথা মতো আমি রাহির রুমে প্রবেশ করলাম। এটা দেখতে যে লোকটার কথা সত্যি কী না? আমি রাহির রুমে ঢুকেই দেখি ওই লোকটা

আমাকে যে গোল চাকতির মতো বস্তুটা দিয়েছিলো ওমন একটা বস্তুর সামনে রাহি বসে আছে। আর ওই বস্তু থেকে এক ধারে আলো সরা সরি এসে রাহির মাথায় পরছে আর সেটা আস্তে আস্তে রাহির সারা শরীরে ছড়িয়ে যাচ্ছে।

About admin

Check Also

যতটা কষ্ট দিয়েছিলাম তার থেকে বেশি কষ্ট এখন

যতটা কষ্ট দিয়েছিলাম তার থেকে বেশি কষ্ট এখন , বাবা, মায়ের খুব আদরের সন্তান ছিলাম। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *